প্রাথমিকে PRT Scale-এ বেতন না দিলে জবাব ভোটবাক্সে মিলবে! সরকারকে কড়া বার্তা UUPTWA-র !!

গত বছরের ১৫ই মার্চে উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার্স ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের আত্মপ্রকাশের পর থেকেই পশ্চিমবঙ্গ দেখে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষকদের ন্যায্য PRT Scale এর দাবির জন্য লড়াই। UUPTWA-র পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষকদের অবগত করানো হয় তাদের বেতন বঞ্চনা সম্বন্ধে। যেখানে ভারতবর্ষের সকল রাজ্যে ৭ম বেতন কমিশন গঠনের পর থেকে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রারম্ভিক বেতন কাঠামো হয়ে গেছে ৩৫৪০০ টাকা , সেখানে কেবলমাত্র পশ্চিমবঙ্গ এখনো পড়ে রয়েছে সেই মাত্র ৫৪০০+২৬০০ বেতন কাঠামোতেই।

পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রতি মাসে বঞ্চনার পরিমান কমপক্ষে ১০,০০০ টাকা। UUPTWA-র অভিযোগ কেন্দ্রের ষষ্ঠ বেতন কমিশন মেনে রাজ্যের সমস্ত দপ্তরের বেতন কাঠামো গঠন হলেও ব্যতিক্রম শুধুমাত্র প্রাথমিকে। কেন্দ্রের ষষ্ঠ বেতন কমিশন মেনেও যদি তারা বেতন পেতেন তাহলে তারা বর্তমানে প্রাপ্ত প্রারম্ভিক বেতনের তুলনায় আরো ১০০০০ টাকার বেশী বেতন পেতেন। UUPTWA-র পক্ষ থেকে সকল প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বঞ্চনা সম্পর্কে অবগত করানোর পাশাপাশি তারা রাজ্যের প্রতিটি দফতরে দরবার করেছেন বারবার । প্রতিটি জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক কে ডেপুটেশন দেওয়ার পাশাপাশি UUPTWA থেকে ডেপুটেশন দেওয়া হয় শিক্ষা সচিব এবং শিক্ষামন্ত্রীকে। সংগঠনের পক্ষ থেকে বারবার দেখা করতে চেয়ে চিঠি দেওয়া হয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে।কিন্তু তার কোনো ফলই আজ পর্যন্ত মেলেনি।

এই সবে কাজের কাজ কিছুই হয়নি। তবে দমে জাননি সংগঠনের শিক্ষক-রা। শহর করকাতায় নিজেদের PRT Scale এর দাবী নিয়ে একাধিকবার করেছেন মিছিল-সমাবেশ। সম্প্রতি গত ৬ই ফেব্রুয়ারি তারা কলকাতা রামলীলা ময়দানে সমাবেশ করে কড়া বার্তা দিয়েছেন রাজ্য সরকারকে।রাজ্য সরকারকে সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয় যদি ২৫শে ফেব্রুয়ারি এর মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী তাদের সঙ্গে আলোচনায় না বসেন তাহলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনে যাবেন। যার প্রভাব ভোট বাক্সেও পড়বে। এই নিয়ে উস্থির সহ সভাপতি শান্তনু মন্ডল জানান, “শুধুমাত্রই যে ভোট বাক্সে এর প্রভাব পড়বে এমনটি নয়। আমরা রাজ্যব্যাপী বিশেষ প্রচার অভিযান কর্মসূচি গ্রহণ করতেও বাধ্য হব এবং জনতার সামনে নেতিবাচক দিকগুলি উপস্থাপন করব। নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় প্রাথমিক শিক্ষকগণ প্রত্যক্ষভাবে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। তা সম্পর্কে সরকার যথেষ্ট ওয়াকিবহাল। আমরা আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান এবং সরকারি নোটিফিকেশন চাই।”

এই সংগঠনের সভাপতি মাননীয় সন্দীপ ঘোষ জানান তারা নেতাজীর কায়দায় ”দিল্লী চলো” ডাক দিয়েছেন। যার জন্য দিল্লী তে মানব সম্পদ উন্নয়ন দফতর, এনসিটিই, এর অনুমতিও নেওয়া হয়ে গেছে বলে খবর। আগামী ৬ই মার্চ দিল্লির যন্তর মন্তর এ UUPTWA এর উদ্যোগে সকাল ১০ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত অবস্থান বিক্ষোভ করবেন এ রাজ্যের হাজারো বঞ্চিত প্রাথমিক শিক্ষক। এই আন্দোলন সফল করার জন্য সবরকম বন্দোবস্ত করা প্রায় শেষ। সংগঠনের সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস জানিয়েছেন, “অনেক হয়েছে সরকারকে অনুনয় বিনয় করা হয়েছে কিন্তু কোনো কাজ হয়নি, এবার সরকার যে ভাষা শুনতে চাইছেন সে ভাষাতেই জবাব দেওয়ার সময় এসেছে।” আরও একধাপ এগিয়ে সন্দীপ ঘোষ বলেন, এই রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী দিল্লী দৌড়োচ্ছেন, সমস্ত ভারতের নেতাদের একত্রিত করছেন।তাই এবার আমরা দিল্লীতে গিয়েই তাদের প্রিয় নেত্রীর আসল চেহারা উন্মোচন করব। সমস্ত দেশ দেখবে যিনি সমস্ত ভারতের রাজনীতিবিদদের এক ছাতার তলায় আনছেন, তারই রাজ্যে জাতি ও সমাজের মেরুদন্ড গঠনকারী প্রাথমিক শিক্ষকদের কি দুরবস্থা। যিনি ক্ষমতায় আসার আগে নির্বাচনী ইস্তেহার এ বলেছিলেন এক অথচ করেছেন এক।” তাই উস্থি ইউনাইটেড এর নেতৃত্বে এবার প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলন যে জাতীয় রাজনীতিকেও নাড়া দিতে চলেছে তা বলাই বাহুল্য।অভিজ্ঞ মহলের ধারণা এই আন্দোলনের ফলেই প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বঞ্চনার অবসান ঘটবে। তাই গোটা রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকরা এই আন্দোলনের দিকে তাকিয়ে রয়েছে।

Join Our WhatsApp GroupWhatsApp-Logo Click here.png

এই রকম আরও বিভিন্ন নিউজ সম্বন্ধে জানতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক করে রাখুন। Netdarpan এর ফেসবুক পেইজ লাইক করার সাথে সাথে আমাদের ওয়েবসাইট কে Subscribe করে রাখুন সকল নিউজ তৎক্ষণাৎ আপনার কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্য।। এতে পশ্চিমবঙ্গ , ভারতবর্ষ এবং সারা বিশ্বের বিভিন্ন কোনায় ঘটে ধাকা বিভিন্ন রকমের খবর সম্বন্ধে আপনারা বিস্তারিতভাবে সম্পূর্ণভাবে আপডেটেড থাকতে পারবেন। ধন্যবাদ।।

0 Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.