উচ্চ প্রাথমিকে নোটিশ জারির পরও চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক !!

হবু শিক্ষকদের আন্দোলনের চাপে পড়ে গতকাল মধ্যরাতে উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগের 1st Phase-এ ভেরিফিকেশনের নোটিশ জারি করেছে স্কুল সার্ভিস কমিশন। কিন্তু এই নোটিশে কোথাও উল্লেখ নেই কতজন চাকরিপ্রার্থীকে ঠিক ভেরিফিকেশনের জন্য ডাকা হয়েছে। তাই এই নিয়ে হবু শিক্ষকদের মধ্যে নোটিশ জারির পরেও পুরোপুরি ধোঁয়াশা কাটেনি।

হবু শিক্ষকদের মধ্যে আতঙ্ক তাদের কাছ থেকে ভেরিফিকেশনে কতজন কে ডাকা হচ্ছে তা না জানিয়ে তাদেরকে তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে। কারণ তাদেরকে সেই শূন্যপদ সংখ্যা না জানালে তারা বুঝতেই পারবে না কমিশন কি আদৌ তাদের দাবি মেনে সিট সংখ্যা বাড়িয়েছে কিনা। তাই পুরোপুরি দাবি না মানা পর্যন্ত তারা তাদের আন্দোলন জারি রেখে যাবে বলেই হবু শিক্ষকদের একাংশর বক্তব্য।

হবু শিক্ষকদের কিছু জনের বক্তব্য এই 1st Phase এ এমন অনেক চাকরিপ্রার্থীও আছে যারা অসৎ উপায়ে ডাক পেয়েছে। তাই হবু শিক্ষকমহলে এই নিয়ে এক আতঙ্কেরও সৃষ্টি হয়েছে। তারা সকল নজরদারি রাখবে বলেই হবু শিক্ষকদের একাংশের বক্তব্য। তারা কলকাতার নিকট চাকরিপ্রার্থী দের প্রতিদিন verification – এর ওখানে গিয়ে সঠিক তথ্য জোগাড় করার জন্য আবেদন করছেন। ঠিক কতজন verification পর্বে অংশগ্রহণ করছে তা জানা টা খুবই জরুরী । তাহলেই সঠিক তথ্য উঠে এসে এই নিয়োগ সঠিক গতিতে এগোচ্ছে কিনা জানতে পারবে হবু শিক্ষকরা। সাথে সাথে যারা 9-12 শিক্ষকতায় সুযোগ পেয়েছেন তাদের কাছে হবু শিক্ষকদের অনুরোধ তারা যেনো এই verification এ অংশগ্রহণ না করে একজন নতুন কে সুযোগ করে দেন চাকরি পেতে।

চাকরিপ্রার্থীদের বক্তব্য যদি আপডেটেড শূন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া না এগোয় তাহলে এই আন্দোলন আরও বৃহত্তর আন্দোলনে পরিণত হবে তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করার জন্য।

প্রসঙ্গত উচ্চ প্রাথমিকে ২০১৪ সালের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ১৪০৮৮টি শূন্যপদ ছিল সেই সময়ে৷ সেই শূন্যপদ বেড়ে ১৮ হাজার হতে পারে বলে অনুমান করেছিলেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ৷ সঙ্গে এত দিনে নিয়োগ না হওয়ার জন্যে আরও সাত হাজার শূন্যপদ যুক্ত হয়ে কমপক্ষে ২৫ হাজার আসানে নিয়োগ হবে বলে আশা করেছিলেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ৷ কিন্তু, কমিশনের তরফে সাংবাদিক বৈঠক করে ১৩০৮০ জনের নিয়োগের কথা ঘোষণা করতেই ক্ষোভ তৈরি হয়েছে উচ্চ প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে৷ কেননা, এর আগেও একাধিকবার উচ্চ প্রাথমিকে ৩০ হাজার শূন্যপদে নিয়োগের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই সুর চড়িয়েছিলেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ৷ কিন্তু, বাস্তবে সেই দাবি আদৌ মেনে নেওয়া হবে কি না তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ৷ ভোটের আগে নিয়োগ শেষ করার দাবি জানিয়ে এদিন জোড়া কর্মসূচি পালনে মাঠে নামেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ৷

0 Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.