মিড-ডে মিল শিক্ষকের দায়িত্ব নয়, রাজ্যের সিদ্ধান্তে শিক্ষক মহলে বাড়ছে ক্ষোভ


মিড-ডে মিলে দুর্নীতি ঠেকাতে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার বিভিন্ন কমিটি গঠন করছে । সেই কমিটির বিভিন্ন পদে শিক্ষকদের রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই খবর প্রকাশ্যে চলে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়লেন বিশিষ্ট শিক্ষক ও শিক্ষক ঐক্য মুক্তমঞ্চের মুর্শিদাবাদ জেলা সম্পাদক তন্ময় ঘোষ। তাঁর দাবি শিক্ষাদান ও শিক্ষ সংক্রান্ত কার্যকলাপ ছাড়া শিক্ষকদের দিয়ে অন্য কোনও কাজে লিপ্ত করাতে পারবে না সরকার।

এমন কি তিনি সরকারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, এমনিতেই সুপরিকল্পিত ভাবে শিক্ষাদান করতে গিয়ে এরাজ্যের শিক্ষকদের নানারকম সমস্যার মুখে পড়তে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। অনেক স্কুলগুলিতেই ছাত্র অনুপাতে পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই, পানীয়জলের ব্যবস্থা নেই, শৌচালয় নেই, শিক্ষক নিয়োগের কোনও ব্যবস্থা নেই, নেই কোনো দুর্নীতিহীন বদলির সুযোগ। তারমধ্যে যখন তখন শিক্ষকদের জন্য নানাবিধ নির্দেশিকা জারি করছে রাজ্য, যেগুলির সঙ্গে শিক্ষকদের কোনও যোগ সংযোগই নেই। ভারতীয় আইন অনুযায়ী ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষাদান করাই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মূল কাজ, সেই সঙ্গে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলায় সহযোগিতা করা, ভোট গ্রহণ করা, এছাড়া অন্য কোনও কাজ শিক্ষকদের দিয়ে করানো যাবে না, তবুও শিক্ষকদের দিয়ে নানাবিধ কাজ করিয়ে নিচ্ছে রাজ্য প্রতিনিয়ত। একেই স্কুলে স্থায়ী শিক্ষকদের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে, ফলে স্কুল চালাতে অসুবিধে হচ্ছে , এরই মধ্যে শিক্ষকদের যদি মিড-ডে মিলের দুর্নীতি ঠেকাতে ব্যবহার করা হয় তাহলে শিক্ষাদানের মত মূল দায়িত্বই ব্যাহত হবে। এতে বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বলাবাহুল্য, শিক্ষকরা মিড-ডে মিলের দায়িত্ব ঘাড়ে নেবেন না, গত মার্চেই বম্বে হাইকোর্টের রায়ে তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই । শিক্ষক- শিক্ষিকাদের পড়ানোটাই তাঁদের মূল কাজ।মিড-ডে মিলের কোনও রকম দায়িত্ব তাঁদের উপরে বর্তায় না।খুব বেশি হলে শহরাঞ্চলের স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষকরা একবার মাসে মিড-ডে মিলের রান্নাঘর দেখে আসতে পারেন। আদৌ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পড়ুয়াদের খাবার তৈরি করা হচ্ছে কিনা তা দেখার জন্যই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে এটুকুই, এর বেশি আর কিছুই শিক্ষকদের দিয়ে করানো যাবে না। এদিকে রাজ্য সরকারের নয়া নির্দেশিকা হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে যাচ্ছে, এমনিতে ইনটার্ন নিয়োগ নিয়ে শিক্ষক মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে, তাই নয়া নির্দেশিকা সেই ক্ষোভের আগুনে বারুদ সঞ্চার করল বলে।

এই রকম আরও বিভিন্ন নিউজ সম্বন্ধে জানতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক করে রাখুন। Netdarpan এর ফেসবুক পেইজ লাইক করার সাথে সাথে আমাদের ওয়েবসাইট কে subscribe করে রাখুন সকল নিউজ তৎক্ষণাৎ আপনার কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্য।

0 Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.