অনলাইনে পিএফের টাকা কিভাবে তুলবেন ? জেনে নিন সহজ পদ্ধতি !! বিস্তারিত জানুন👇

আপনারা যারা কোথাও কোন অফিসে কাজ করেন তাদের অবশ্যই একটি করে প্রভিডেন্ট ফান্ড বা পিএফ অ্যাকাউন্ট থাকে। আগে পিএফ এর টাকা তোলা একটি অত্যন্ত সমস্যার কাজ ছিল। কিন্তু এখন আপনারা কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ড বা কর্মচারী ভবিষ্যনিধি অ্যাকাউন্টে জমানো টাকা খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে তুলতে পারবেন। পিএফ অ্যাকাউন্ট প্রত্যেক সরকারি বা বেসরকারি কর্মচারীর জন্য একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নগদ জমারাশি যা তাদের অবসরের পর তাদের প্রয়োজনে ব্যবহৃত হতে পারে। এখন আপনারা আপনাদের পিএফ অ্যাকাউন্টে জমানো টাকা EPFO অফিস এর অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে বের করতে পারেন। তবে অনলাইনে টাকা বের করার সময় আপনাকে আপনার আধার নম্বরটিকে UAN নম্বর এর সাথে লিঙ্ক করিয়ে রাখতে হবে।

প্রভিডেন্ট ফান্ডে কত টাকা আছে তা জানার জন্য অথবা টাকা সেখান থেকে বের করার জন্য আপনাদের একটি বিশেষ অ্যাকাউন্ট নম্বর দেওয়া হয় যেটির নাম UAN ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নাম্বার। এই নম্বরটি কে আপনার পিএফ অ্যাকাউন্টের নাম্বার বলা যেতে পারে। ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন ফাইল এর সময় ছাড় বা বেনিফিট পাওয়ার জন্য কর্মচারীরা পিএফ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে থাকেন। তাদের মাসিক বেতনের কিছু অংশ তার পিএফ অ্যাকাউন্টে জমা হতে থাকে। অবসরের পর সময়মতো তারা তাদের পিএফ অ্যাকাউন্টে জমানো টাকাটি তুলে নিতে পারেন। আজ আমরা এখানে আপনাদের বলব কিভাবে আপনারা আপনাদের প্রভিডেন্ট ফান্ড অ্যাকাউন্টে জমানো টাকা অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

• আপনার পিএফ একাউন্ট এর ব্যাপারে তথ্য জানতে গেলে প্রথমে আপনাকে EPFO এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার UAN নম্বরটিকে অ্যাক্টিভেট করতে হবে। অ্যাক্টিভেশনের ৬ ঘন্টা পরে আপনি আপনার পিএফ অ্যাকাউন্টের সমস্ত তথ্য জানতে পারবেন।
• এরপরে আপনাকে আবার EPFO এ ওয়েবসাইটে গিয়ে UAN নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে।
• তারপর আপনাকে KYC ডিটেইলস এ ক্লিক করতে হবে। এরপর আপনাকে ম্যানেজ ট্যাবটিতে ক্লিক করতে হবে।
• তারপরে উপরে মেনুবার থেকে অনলাইন সার্ভিসেস ট্যাবে ক্লিক করে ড্রপডাউন মেনু থেকে ‘ক্লেইম’ অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর আপনার স্ক্রিনে ‘ক্লেইম’ পেজটি খুলে যাবে।
• তারপর সেখানে আপনি মেম্বার ডিটেলস, KYC ডিটেলস, এবং ব্যাংক একাউন্ট ডিটেইলস দেখতে পাবেন। সেখানে গিয়ে আপনাকে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বারের শেষ চারটি সংখ্যা দিয়ে ভেরিফাই করাতে হবে।
• তারপর YES বাটনে ক্লিক করে সার্টিফিকেট অফ আন্ডারটেকিং অপশনে ক্লিক করতে হবে।
• যখনই আপনি ‘প্রোসিড টু অনলাইন ক্লেইম’ ট্যাবে ক্লিক করবেন তখনই আপনার সামনে তিনটি বিকল্প চলে আসবে।

  1. প্রথমে আসবে ফর্ম নম্বর ১৯। এটি ব্যবহার করে আপনি আপনার পিএফ অ্যাকাউন্টের সমস্ত টাকা একসাথে তুলে নিতে পারবেন। এই ফর্মটিকে ফাইনাল সেটেলমেন্ট ফর্মও বলা চলে।
  2. দ্বিতীয় বিকল্পটি হলো ফর্ম নম্বর ১০সি। এই ফোনটি ব্যবহার করে আপনি কেবল পেনশনের টাকা তুলতে পারবেন।
  3. তৃতীয় বিকল্পটি হল ফর্ম নম্বর ৩১। এই ফোনটি ব্যবহার করে আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে আংশিক কিছু পরিমাণ টাকা তুলতে পারবেন।
    • যে কোন একটি বিকল্পে ক্লিক করে আপনাকে সেটিকে সাবমিট করতে হবে।
    • তারপর EPFO আপনার KYC ভেরিফাই করে আপনার পিএফ ক্লেইমের প্রক্রিয়াটির উপর কাজ শুরু করবে। এই প্রক্রিয়াটিতে অ্যাপ্রুভাল পেতে ১০ দিন সময় লাগে। অ্যাপ্রুভ হওয়ার পরে কিছুদিনের মধ্যে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে আপনার ক্লেইমের সমপরিমাণ টাকা পৌঁছে যাবে।

Join Our WhatsApp GroupWhatsApp-Logo Click here.png

এই রকম আরও বিভিন্ন নিউজ সম্বন্ধে জানতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক করে রাখুন। Netdarpan এর ফেসবুক পেইজ লাইক করার সাথে সাথে আমাদের ওয়েবসাইট কে Subscribe করে রাখুন সকল নিউজ তৎক্ষণাৎ আপনার কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্য।। এতে পশ্চিমবঙ্গ , ভারতবর্ষ এবং সারা বিশ্বের বিভিন্ন কোনায় ঘটে ধাকা বিভিন্ন রকমের খবর সম্বন্ধে আপনারা বিস্তারিতভাবে সম্পূর্ণভাবে আপডেটেড থাকতে পারবেন। ধন্যবাদ।।

0 Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.