#BUDGET2019: সরকারি কর্মীদের জন্য বড় ঘোষণা কেন্দ্রীয় বাজেটে


নয়াদিল্লি: সপ্তম পে কমিশন রিপোর্ট প্রকাশের পর পরেই আজকের কেন্দ্রীয় বাজেটে তার প্রতিফলন দেখতে পাওয়া গেলো । আগে যদি কোনও সরকারি কর্মচারী বেতনের ১০ শতাংশ হারে পেনশন পেতেন তাহলে সরকার সেখানে তাঁকে চার শতাংশ অতিরিক্ত দিত । তবে নয়া বেতন কমিশনে সেই শতাংশের মাত্রা বাড়ি ১৪ শতাংশ করা হয়েছে । সামনেই লোকসভা ভোট তাই সপ্তম পে কমিশনকে উহ্য রেখেই আজ কেন্দ্রীয় বাজেটে একের পর এক মাস্টার স্ট্রোক দিলেন ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। তিনি অসংগঠিত ক্ষেত্রে বড় পেনশন স্কিমের কথা ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় বাজেটে। প্রায় দশ কোটি কর্মীর জন্য মাসে ৩ হাজার টাকা করে পেনশন নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে এই কেন্দ্রীয় বাজেটে । এই প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মনধন। প্রত্যেক চাকুরীজীবিদের কাছে ভবিষ্যৎ এ যাতে আর্থিক সঙ্কট না দেখা দেয় তা নিয়ে চিন্তিত থাকেন। তাই এই বাজেট এ পেনশন নিয়ে চিন্তা ভাবনা করায় চাকুরিজীবিদের জন্য খুবই সুখের খবর।


পীযূষ গোয়েলের আশা করছেন যে , আগামী পাঁচ বছরের মধ্যেই এই পেনশন প্রকল্পটি অসংগঠিত ক্ষেত্রে বিশ্বের সর্ববৃহৎ পেনশন প্রকল্পে পরিণত হবে। এই পেনশন প্রকল্পে উপকৃত হবেন, ঘরে সহযোগীর কাজ করা শ্রমিক, বিড়ি শ্রমিক, ছোট দোকান কর্মীদের মতো অনেকেই। এই অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকরা পেনশন স্কিমে যোগ দিতে পারেন ১৮ বছর বয়স থেকেই । তখন তাঁকে দিতে হবে মাসে ৫৫ টাকা করে। ২৯ বছর বয়সে যোগ দিলে দিতে হবে ১০০ টাকা করে।


৬০ বছর বয়সে পৌঁছলে পেনশন পেতে শুরু করবে তাঁরা মাসিক হিসেবে । পেকমিশনের ঝুলিতে আরও অনেক চমক, ১ কোটি শ্রমিকের জন্য ৩০০০ টাকার পেনশন প্রকল্প। ২১ হাজার আয়ের শিল্প শ্রমিকদের বোনাস দ্বিগুন। গ্রাচুইটির সীমা ১০ লক্ষ টাকা থেকে বেড়ে ২০ লক্ষ টাকা করা হল । ১৫ হাজার টাকার কম বেতনেই চালু পেনশন। শ্রমিকদের জন্য ইপিএম আড়াই লক্ষ থেকে বেড়ে করা হল ৬ লক্ষ টাকা । শ্রমিকদের ন্যূনতম পেনশন করা হল ১০০০ টাকা। কর্মরত শ্রমিকের মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারের হাতে যে ইপিএফ বাবদ টাকা তুলে দেওয়া হবে তার পরিমাণ দ্বিগুন করা হল । একই সঙ্গে ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে অঙ্গনওয়াড়ি ও আশা প্রকল্পের কর্মীদের সাম্মানিক।

0 Shares

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.